মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের উদ্যোগে মহিউদ্দিন চৌধুরীর স্মরণসভা

424

মহিউদ্দিন চৌধুরীরা যুগে যুগে আসে না। তার মতো নেতাকে জনগণ আজীবন স্মরণ রাখবে।

প্রয়াত রাজনীতিক এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর স্মরণসভায় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ‘মহিউদ্দিন চৌধুরীরা যুগে যুগে আসে না। তার মতো নেতাকে জনগণ অবশ্যই স্মরণ রাখবে।’

বিজ্ঞাপন
মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) বিকেলে নগরীর জিইসি মোড়ে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে আয়োজিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ‍মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদ এই স্মরণসভার আয়োজন করে।

ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘মহিউদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রামের উন্নয়নে কাজ করে গেছেন। তিনি চট্টগ্রামের শুধু নয়, দেশের কৃতি সন্তান। তাকে অবশ্যই স্মরণ রাখবে জনগণ। কারণ তিনি মানুষের কাছে জনপ্রিয় নেতা ছিলেন। মহিউদ্দিন ছিলেন শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত সহচর।’

তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে আমরা যুদ্ধ করেছিলাম। মহিউদ্দিন চৌধুরীও মুক্তিযুদ্ধ করেছেন। সমুদ্রের গভীরতা নিরুপণ করা যাবে। কিন্তু বাংলার মানুষের প্রতি বঙ্গবন্ধুর ভালোবাসা পরিমাপ করা যাবে না। তার স্বপ্ন বাস্তবায়নে এগিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ডিজিটাল বাংলাদেশ করেছেন দেশকে।’

প্রধান বক্তা চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাংসদ মোছলেম উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘মহিউদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রামের স্বার্থে আন্দোলন করেছেন। তিনি সরকারের সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়েছেন। বন্দর রক্ষায় আন্দোলন করেছিলেন। পরে সরকার তাদের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে শেখ হাসিনার পর যাদের নাম আসবে তাদের মধ্যে মহিউদ্দিন চৌধুরী অন্যতম। সাধারণ মানুষের নেতা ছিলেন তিনি। এখন আমাদের ঐক্য দরকার। অনৈক্যের ফাঁক দিয়ে ১৫ আগস্টের, ২১ আগস্টের হোতারা ঢুকে পড়ছে। তাই ঐক্যের বিকল্প নেই।’

সভাপতির বক্তব্যে প্রিমিয়র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অনুপম সেন বলেন, ‘মহিউদ্দিন চৌধুরী সাধারণ কোনো নেতা ছিলেন না। অনেকেই রাজনীতি করেন। কিন্তু সবাই মৃত্যুর মুখে বারবার ছুটে যেতে পারেন না। মহিউদ্দিন চৌধুরী বারবার ছুটে গেছেন। পঁচাত্তর সালে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হলো, তখন এই মহিউদ্দিন চৌধুরী এবং মৌলভী সৈয়দ বিদ্রোহ করেছিলেন। চট্টগ্রামে বিদ্রোহ যেভাবে হয়েছিল সেভাবে ঢাকায় হয়েছিল বলে মনে হয়নি।’

বিজ্ঞাপন
এসময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। আলোচনায় অংশ নেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মো. রেজাউল করিম চৌধুরী ও নগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন।

 

 

 

 

 

 

স্মরণসভার ভিডিও দেখুন নিচের দুইটি লিংকে
লিংক ১ https://fb.watch/2oQZ-EJZO4/লিংক ১ ক্লিক করুন

লিংক ২ ক্লিক করুন ক্লিক করুন

 

ছবিতে দেখুন